চন্দ্রযান-৩ এর এলিয়েন খুঁজে পাওয়ার খবর কি সত্যি?

0
465
চন্দ্রযান-৩

ISRO-এর তৃতীয় চন্দ্র মিশন “চন্দ্রযান-3” এর ল্যান্ডার মডিউলের সফল অবতরণের মাধ্যমে, ভারত চাঁদে পৌঁছেছে ! এটি চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে অবতরণকারী প্রথম দেশও হয়ে উঠেছে। এই নিয়ে এখন গোটা  বিশ্বের চোখ শুধু ভারতের মিশন চন্দ্রযান-3 উপরে।

এর মধ্যেই অনেক আজগুবি খবর হয়তো আপনাদের চোখেও পড়ে থাকবে যেমন “চন্দ্রযান-3 এলিয়েন খুঁজে পেয়েছে” বা  “চন্দ্রযান-3 এর রত্নভাণ্ডারের খোঁজ” ইত্যাদি এইরকম অনেক কিছু। সত্যি বলতে কি চন্দ্রযান-3 কিন্তু এইসবের জন্য চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে যায়নি।

চন্দ্রযান 3 সম্পর্কে প্রধান কিছু অনুসন্ধান:-

১. এই মিশনটি ISRO-এর নেতৃত্বে ভারত কর্তৃক গৃহীত একটি প্রযুক্তিগত চ্যালেঞ্জ। যেটি আমরা অনেক আগেও নিয়েছিলাম কিন্তু সফল হতে না পারায় সারা বিশ্বজুড়ে ছি ছি রব পড়ে গিয়েছিলো। এখন আমরা  চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে অবতরণকারী প্রথম দেশও হয়ে উঠেছে এটা একজন ভারতীয় হিসেবে গর্বের।

২. এই মিশনটি ISRO-এর নেতৃত্বে মূলত দুইটি অনুসন্ধানের ভাগ একটি হলো তাপমাত্রা এবং অন্যটি হলো অক্সিজেন সহ বিভিন্ন উপাদানের উপস্থিতি।

৩. ISRO এখনো পর্যন্ত দক্ষিণ মেরুর চন্দ্রপৃষ্টে  অক্সিজেন, অ্যালুমিনিয়াম, ক্যালসিয়াম, আয়রন, ম্যাঙ্গানিজ, টাইটানিয়াম, ক্রোমিয়াম, সালফার এবং সিলিকনের উপস্থিতি নিশ্চিত করেছে।

LIBS instrument is developed at the Laboratory for Electro-Optics Systems (LEOS)/ISRO

৪. চন্দ্রের তাপমাত্রা চন্দ্রযান 3 চাঁদের মাটির তাপমাত্রা পরিমাপ করেছে এবং কিছু বিস্ময়কর ফলাফল পেয়েছে যা এর আগে কেউ ভাবতেও পারেনি। তাপমাত্রা মাইনাস 10 ডিগ্রি সেলসিয়াস থেকে প্রায় 70 ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত।

৫. এছাড়াও সবথেকে বড়ো খবর, প্রজ্ঞান রোভার চন্দ্র পৃষ্ঠের উপর পরীক্ষা নিরীক্ষা করে হাইড্রোজেন এর খোঁজ পেয়েছে যেটি এখনো পর্যন্ত এক যুগান্তকারী খোঁজ ISRO এর কথা মতো।

চন্দ্রযান 3, 23 আগস্ট চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে সফ্ট ল্যান্ডিং করেছিল। তারপর থেকেই , প্রজ্ঞান রোভার বৈজ্ঞানিক পরীক্ষা নিরীক্ষা চালাচ্ছে ।  ইসরো প্রধান এস সোমনাথ এর ব্যাখ্যা অনুযায়ী কোনো দেশ চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে সফট-ল্যান্ড করেনি। দক্ষিণ মেরু, সূর্য দ্বারা কম আলোকিত এবং মানুষের থাকার উপযুক্ত  হওয়ার সম্ভাবনা থাকতে পারে বলেই এই সিদ্ধান্ত ।

প্রজ্ঞান রোভার আজ সকালে বিক্রম ল্যান্ডারের একটি ছবি ক্লিক করেছে।

‘মিশনের চিত্র’ রোভার (NavCam) জাহাজে নেভিগেশন ক্যামেরা দ্বারা নেওয়া হয়েছিল।

চন্দ্রযান-৩ মিশনের জন্য নেভিক্যামগুলি ল্যাবরেটরি ফর ইলেক্ট্রো-অপটিক্স সিস্টেম (LEOS) দ্বারা তৈরি করা হয়েছে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here